জাতীয় পরিচয়পত্র ডাউনলোড করার নতুন নিয়ম 2024

জাতীয় পরিচয়পত্র ডাউনলোড ( NID Card Download) এখন পানির মতন সহজ। আপনার আইডি কার্ড টি হারিয়ে গেছে কিংবা খুজে পাচ্ছেন না। অথবা নতুন ভোটার হওয়ার জন্য আবেদন করেছেন এখন NID Card Download করতে চাইতেছেন তাহলে মাত্র ২ মিনিটে দেখানো নিয়ম ফলো করে খুব সহজে জাতীয় পরিচয় পত্র ডাউনলোড করতে পারবেন।

জাতীয় পরিচয়পত্র ডাউনলোড করার নতুন নিয়ম 2024
জাতীয় পরিচয়পত্র ডাউনলোড করার নতুন নিয়ম 2024

আপনার কাছে যদি ভোটার স্লিপ নম্বর অথবা ফরম নম্বর থাকে এবং জন্ম তারিখ জানা থাকে তাহলে খুব সহজেই জাতীয় পরিচয়পত্র ডাউনলোড করতে পারবেন। আর যদি হারিয়ে গিয়ে থাকে তাহলে রি-ইস্যু আবেদন করে পুনরায় ডাউনলোড করা যাবে।

জাতীয় পরিচয় পত্র ডাউনলোড করতে কি কি লাগে

জাতীয় পরিচয়পত্র ডাউনলোড করার আগে সকলের জানা থাকা উচিত ডাউনলোড এর জন্য কি কি কাগজপত্র লাগে। আইডি কার্ড ডাউনলোড এর জন্য জাতীয় পরিচয় পত্র নম্বর, জন্ম তারিখ সহ আরও বেশ কিছু ডকুমেন্ট লাগে। এছারাওঃ

  • বর্তমান ও স্থায়ী ঠিকানা
  • জন্ম তারিখ
  • সচল মোবাইল নম্বর
  • স্মার্ট ফোন
  • NID Wallet অ্যাপ
  • ভোটার নম্বর/ স্লিপ নম্বর/ NID কার্ড নম্বর

এই ডকুমেন্টস গুলো থাকলে যেকোনো সময় যেকোনো জায়গা থেকে দোকানে না গিয়ে নিজেই জাতীয় পরিচয়পত্র ডাউনলোড করা যাবে। কিভাবে নিজে নিজে অনলাইন থেকে আইডি কার্ড ডাউনলোড করবেন তা নিচে ধাপে ধাপে দেখানোর চেষ্টা করেছি।

জাতীয় পরিচয়পত্র ডাউনলোড করার নিয়ম

অনলাইন থেকে জাতীয় পরিচয়পত্র ডাউনলোড করতে বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন এর অফিসিয়াল ওয়েবসাইট ( services.nidw.gov.bd ) লিংক এ প্রবেশ করে প্রয়োজনীয় তথ্য ( জাতীয় পরিচয় পত্র নম্বর, জন্ম তারিখ, মোবাইল নম্বর) দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। রেজিস্ট্রেশনের পর পুনরায় লগইন করে ইউজার ড্যাশবোর্ড থেকে জাতীয় পরিচয়পত্র ডাউনলোড করা যাবে।

তবে জেনে রাখা উচিত, আগে যে কেও অন্য কারো জাতীয় পরিচয়পত্র ডাউনলোড করতে পারত, তবে এখন তা আর সম্ভব নয়। কেননা এখন আইডি কার্ড ডাউনলোড করার জন্য NID Wallet এর মাধ্যমে ফেইস ভেরিফিকেশন এর প্রয়োজন হয়। তাই যার আইডি কার্ড সে ব্যতিত অন্য কেও ডাউনলোড করতে পারবে না।

আইডি কার্ড ডাউনলোড এর ধাপ সমূহ

হ্যাঁ, মাত্র সহজ পাঁচটি (০৫) ধাপ অনুসরণ করে সহজেই অনলাইন থেকে জাতীয় পরিচয় পত্র ডাউনলোড করতে পারা যাবে। কি কি কাগজপত্র লাগবে তা যদি হাতের নাগালে থাকে তাহলে নিচের ধাপগুলো অনুসরণ করলে আইডি কার্ড ডাউনলোড কোন ব্যাপারই না।

স্টেপ-১ঃ NID wallet অ্যাপ ডাউনলোড

সর্ব প্রথম গুগল প্লে স্টোর এ গিয়ে সার্চ দিয়ে হবে NID Wallet লিখে। তারপর অ্যাপটি ডাউনলোড করতে হবে। কেননা এই অ্যাপ দিয়েই পরবর্তীতে প্রার্থীর ফেইস ভেরিফিকেশন করতে হবে। অ্যাপটির ডাউনলোড লিংক টি হল NIDW BD

nid wallet
NID Wallet

স্টেপ-২ঃ সরকারি ওয়েবসাইট এ অনুপ্রবেশ

বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন এর প্রস্তাবনা অনুসারে এনআইডি সংক্রান্ত সকল তথ্য অনলাইন করার লক্ষে ২০১৬ সাল থেকে নতুন ওয়েবসাইট লঞ্চ করা হয়। সেই ওয়েবসাইট এর লিংক হচ্ছে https://services.nidw.gov.bd/nid-pub/

জাতীয় পরিচয়পত্র ডাউনলোড
সরকারি ওয়েবসাইটের লিংক এ প্রবেশ

উপরের ছবির মত সাইটে ডুকলে তিনটি অপশন দেখা যাবে।(১) যাদের অ্যাকাউন্ট করা নেই তারা রেজিস্টার করুন বাটনে ক্লিক করে রেজিস্ট্রেশন করে নিবে।

(২) যাদের এনআইডি কার্ড এর জন্য আবেদন করা হয়নি কিন্তু ১৮ বছর পূর্ণ হয়েছে তারা নতুন আইডি কার্ড এর আবেদন করতে পারবে আবেদন করুন বাটনে ক্লিক করে

(৩) সর্বশেষ যাদের আগে থেকে NIDW BD ওয়েবসাইটে রেজিস্ট্রেশন করা আছে তারা তাদের ইউজার আইডি ও পাসওয়ার্ড দিয়ে লগ ইন করে আইডি কার্ড ডাউনলোড, সংশোধন, যাচাই করতে পারবে।

স্টেপ-৩ঃ রেজিস্ট্রেশন

আগে থেকে অ্যাকাউন্ট না থাকলে রেজিস্টার করুন বাটনে ক্লিক করতে হবে। এখানে প্রবেশ এর পর জাতীয় পরিচয় পত্র নম্বর কিংবা ভোটার স্লিপ নম্বর, জন্ম তারিখ এবং কাপচা কোড সঠিক ভাবে পুরন করতে হবে।

nid card check
রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়া

এক্ষেত্রে অবশ্যই ১০ সংখ্যার স্মার্ট জন্ম সনদ নম্বর অথবা ১৭ সংখ্যার নম্বর প্রবেশ করাতে হবে। যদি আইডি কার্ড এর নম্বরটি ১৩ সংখ্যার হয় তবে তা দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করা যাবে না। এক্ষেত্রে তা পরিবর্তন করে ১২৩ সংখ্যা থেকে ১৭ সংখ্যায় রপান্তরিত করে নিতে হবে।

স্টেপ-৪ঃ ঠিকানা যাচাইকরণ

এই ধাপে প্রার্থীর বর্তমান ঠিকানার অধীনে বিভাগ, জেলা ও উপজেলার তথ্য দিতে হবে। একইভাবে স্থায়ী ঠিকানাও পুরন করতে হবে। মনে রাখতে হবে এই ঠিকানা যাচাই করা হবে। যদি বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন এর সারভার এর সাথে আপনার দেওয়া তথ্য না মিলে তবে আপনি পরবর্তী ধাপে জেতে পারবেন না।

nid card check
ঠিকানা যাচাই

বর্তমান ও স্থায়ী ঠিকানা পুরন হয়ে গেলে পরবর্তী বাটনে ক্লিক করতে হবে। এখানে উল্লেখ্য যে বারবার ভুল ঠিকানা দিলে অ্যাকাউন্ট লক হবার সম্ভাবনা থাকে।

মোবাইল নম্বর যাচাই

এখন একটি সচল মোবাইল নম্বর প্রদান করতে হবে। যে সিম এ ৬ সংখ্যার একটি ভেরিফিকেশন কোড সহকারে ম্যাসেজ আসবে। নেটওয়ার্ক জনিত সমস্যার কারনে ম্যাসেজ আসতে দেরি হতে পারে, তাই এক্ষেত্রে গ্রামীনফোন সিম ইউজ করা ভালো। অন্য অপারেটর এর সিম ব্যাবহার করলেও সমস্যা নেই।

মোবাইল নম্বর ভেরিফিকেশন হয়ে গেলে আর মাত্র একটি কাজ বাকি থাকবে সেটি হচ্ছে NID Wallet এর মাধ্যমে ফেস ভেরিফিকেশন।

স্টেপ-৫ঃ ফেস ভেরিফিকেশন

আগে থেকে ডাউনলোড করে রাখা NID Wallet অ্যাপটি এবার ওপেন করতে হবে। ওপেন করে আইডি কার্ড এর নম্বর ও জন্ম তারিখ দিয়ে লগইন করে কম্পিউটারে নিচের ছবির মত প্রদর্শিত QR কোড টি স্ক্যান করে নিতে হবে।

মনে রাখবেন ফেইস ভেরিফিকেশন এর জন্য পর্যাপ্ত আলো থাকতে হবে। ডানে বানে ঘুরে যেভাবে বলা হবে সেভাবে করে কমপ্লিট করতে হবে।

scan qr code for nid check
QR কোড স্ক্যান

বলে রাখা ভালো যে সম্পূর্ণ প্রক্রিয়াটি যদি মোবাইল ফনে করা হয়, তাহলে আলাদা করে QR Code স্ক্যান করতে হবেনা। এক্ষেত্রে সরাসরি অ্যাপ এ নিয়ে যাবে সেখান থেকে যেভাবে বলা হবে সেভাবে ডানে-বামে ঘুরে, চোখ মিটমিট করে ফেস ভেরিফিকেশন সম্পন্ন করতে হবে।

মোবাইল থেকে ফেস ভেরিফিকেশন হয়ে গেলে একটি ইউজার নেম ও পাসওয়ার্ড সেট করতে বলা হবে। উল্লেখ্য যে, পাসওয়ার্ড পরবর্তীতে ভুলে গেলেও হতাস হবার কোন কারন নেই। কেননা পরবর্তীতে রেজিস্ট্রেশনের সময় দেওয়া মোবাইল নম্বর দিয়ে পুনরায় পাসওয়ার্ড পুনরুদ্ধার করা যাবে।

জাতীয় পরিচয়পত্রের অনলাইন কপি ডাউনলোড

উপরের পাঁচটি সহজ ধাপ সম্পন্ন হয়ে গেলে ইউজার নেম ও পাসওয়ার্ড পাওয়া যাবে। ড্যাশবোর্ড থেকে প্রাপ্ত User Name এবং Password ব্যাবহার করে পুনরায় লগইন করলে আবেদনকারীর প্রোফাইল ওপেন হবে। সেখান থেকে জাতীয় পরিচয় পত্রের তথ্য যাচাই, সংশোধন এবং ডাউনলোড করা যাবে।

আইডি কার্ড সংক্রান্ত গুরুত্বপূর্ণ কিছু প্রশ্নোত্তরঃ

জাতীয় পরিচয়পত্র ডাউনলোড লিংক ?

জাতীয় পরিচয়পত্র ডাউনলোড করার লিংকটি হচ্ছে https://services.nidw.gov.bd/nid-pub/ যেটি বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন কর্তৃক পরিচালিত এনআইডি কার্ড এর সকল সেবা সংক্রান্ত একমাত্র সরকারি ওয়েবসাইট।

জাতীয় পরিচয়পত্র ডাউনলোড করার নিয়ম ?

অনলাইনে ঘরে বসে জাতীয় পরিচয়পত্র ডাউনলোড করার জন্য প্রথমে services.nidw.gov.bd ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে হবে। তারপর রেজিস্ট্রেশন করে পুনরায় লগইন করতে হবে। লগইন এর পর প্রোফাইল ড্যাশবোর্ড থেকে সহজেই জাতীয় পরিচয়পত্র ডাউনলোড করা যাবে।

সংশোধিত জাতীয় পরিচয়পত্র ডাউনলোড ?

আপনি যদি NIDW BD ওয়েবসাইট টি ফলো করে আইডি কার্ড সংশোধন করে থাকেন, তাহলে ৩ থেকে ৪ সপ্তাহের মধ্যে জাতীয় পরিচয় পত্র ডাউনলোড করা যাবে। সংশোধিত আইডি কার্ড রেডি হলে মোবাইল এ ম্যাসেজ আসবে। সেই তথ্য দিয়ে NID Card Download করা যাবে।

Similar Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *